আগামীকাল পবিত্র শবে বরাত

স্বতঃকণ্ঠ প্রতিবেদনঃ সোমবার ২৯ মার্চ দিবাগত রাতে পালিত হবে পবিত্র শবে বরাত। গত ১৪ মার্চ রবিবার সন্ধ্যায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা আল্লাহ্‌র সন্তুষ্টি লাভের আশায় এদিন বেশি বেশি  ইবাদত-বন্দেগী, যিকির, কোরআন তেলওয়াত, নফল রোযা, দান খয়রাত করবেন।

ইসলামী ক্যালেন্ডারে শবে বরাত একটি গুরুত্বপূর্ণ রাত এবং এটি শাবানের মাঝামাঝি (শা’বানের ১৪ থেকে ১৫ তারিখের মধ্যবর্তী রাতে) উদযাপন করা হয়। এই কারণেই একে বলা হয় নিসফ শাবান। এই বরকতময় রাত্রি শাবানের ১৪ শা’বান সূর্যাস্তের সময় শুরু হয় এবং ১৫ শা’বানের ভোরে শেষ হয়।

চন্দ্র বর্ষের ৮ম শা’বান মাসের ১৫ তারিখ বা অর্ধ শা’বানের রাতকে আমাদের দেশে শবে বরাত বলা হয়। কিন্তু পৃথীবি ভিন্ন ভিন্ন মুসলিম দেশে এই দিনটিকে ভিন্ন ভিন্ন নামে ডাকা হয়।

দক্ষিণ এশিয়ার শাব-ই বারাত বা শবে বারাত নামে পরিচিত, বিশেষ করে উপমহাদেশে, আরবী ভাষায় লায়লাতুল বারাত, ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়ার নিসফু সিবান (মালাম নিসফু সিয়াবান) এবং তুরস্কে বেরাত কান্দিলি নামে ডাকা হয়।

শাব-ই-বারাত হচ্ছে এমন এক রাত যা অনেক মুসলমান ক্ষমার রাত হিসেবে শ্রদ্ধা করে, সারা রাত আল্লাহর কাছে তাঁর অনুগ্রহ প্রার্থনা করে।

‘শব’ ফারসি শব্দ এর অর্থ রাত। আর ‘বারাআত’ অর্থ মুক্তি বা নিস্কৃতি। ‘শবে বরাত’ অর্থ মুক্তির রাত বা নাজাতের রাত। হাদীসে এই রাতটিকে অর্ধ শ’বান এর রাত বলা হয়েছে।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন