আসলেও কি বাংলাদেশে ব্যান হতে যাচ্ছে “পাবজি” এবং “ফ্রি ফায়ার” !?

স্টাফ রিপোর্টারঃ জনপ্রিয় ব্যাটল রয়্যাল গেম পাবজি  ও ফ্রি ফায়ার এখন বাংলাদেশেও নিষেধাজ্ঞার সম্মুখীন হতে চলেছে। কিশোর ও তরুণ প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে এর আসক্তি নিয়ে উদ্বেগের কথা উল্লেখ করে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, একইসাথে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক কমিশন, বিটিআরসিকে দেশের দুটি খেলা বন্ধ করার সুপারিশ করছে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মুস্তাফা জব্বার বলেছেন, তাঁর মন্ত্রণালয় এই নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে কোনো নির্দেশনা পায়নি। তিনি বলেন, “আমি বা আমার মন্ত্রক এই ধরনের কোনও ঘটনাসম্পর্কে অবগত নই।

যদিও আমাদের কাছে সেই সমস্ত সরঞ্জাম রয়েছে, তারপরও আমরা নিজেরাই এই সাইট গুলি বা গেমগুলি ব্লক করতে পারি না। আমাদের অন্যান্য সংশ্লিষ্ট সরকার বা আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সুপারিশের ভিত্তিতে কাজ করতে হবে। আমরা এখনও পর্যন্ত এই জাতীয় কোনও সুপারিশ পাইনি,” বলেন মন্ত্রী।

“আজকের বিশ্বে, কোন কিছু নিষিদ্ধ করা আসলে কোন সমাধান নয়। আপনি সর্বদা ভিপিএন এবং অন্যান্য পদ্ধতি ব্যবহার করে নিষিদ্ধ প্ল্যাটফর্মগুলিতে অ্যাক্সেস করতে পারেন।

অতীতে, আমরা আইএসপিগুলিতে অভিভাবকদের গাইড টুলস সরবরাহ করেছি যা অভিভাবকদের অনুমতি দেয় ওয়েবে তাদের বাচ্চাদের ক্রিয়াকলাপ নিয়ন্ত্রণ করার। দুঃখের বিষয়, আমরা প্রযুক্তির যথেষ্ট ব্যবহার দেখতে পাচ্ছি না।

এই গেমগুলো নিষিদ্ধ করা তেমন কোন পরিবর্তন করবে না যদি পিতামাতা এবং শিশুরা তাদের বিপদ সম্পর্কে অবগত না হয়,” বিষয়টি সম্বোধন করার সময় মন্ত্রী উল্লেখ করেন।

নাগরিকদের অনেকে টুইটার এবং ফেসবুকে সম্ভাব্য নিষেধাজ্ঞার প্রশংসা করেছেন, অন্যদিকে খেলোয়াড়রা এই পদক্ষেপনিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

সম্প্রতি ভারতে, নেপাল এবং গুজরাটেও একই কারণ দেখিয়ে “পাবজি” নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। এর আগে ২০১৯ সালের অক্টোবরে “পাবজি” বাংলাদেশে আরেকটি সংক্ষিপ্ত নিষেধাজ্ঞার মধ্য দিয়ে যায়।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন