ইসরায়েলি নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও আল আকসা মসজিদে রমজানের প্রথম জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত

স্বতঃকণ্ঠ আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ রমজানের প্রথম শুক্রবার জেরুজালেমের আল-আকসা মসজিদে হাজার হাজার মুসলমান ভিড় জমায় জুম্মা’র নামায আদায় করার জন্য।

কোভিড-১৯ টিকাকরণ নথি ছাড়া পশ্চিম তীরের ফিলিস্তিনিদের জেরুজালেমে প্রবেশাধিকারের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ইসরায়েল। ইসরায়েলি এই নিষেধাজ্ঞার কারণে ক্ষুব্ধ হয় ধর্মপ্রাণ ফিলিস্তিনি মুসলিমরা।

সকাল থেকে ইসরায়েল অধিকৃত পশ্চিম তীরের বেথলেহেম এবং রামাল্লা শহরের ফিলিস্তিনি অধিবাসীরা জেরুজালেমে প্রবেশের আগে তাদের প্রবেশের অনুমতি এবং টিকাকরণের পরীক্ষার জন্য ইজরায়েলি চেকপয়েন্টে সারিবদ্ধ ভাবে দাঁড়িয়ে ছিল।

পূর্ব জেরুজালেম এবং ইসরায়েলের আরব শহরগুলোর অন্যান্যদের প্রবেশাধিকার সহজ ছিল, কারণ তারা ইসরায়েলের বিশ্ব-বিটিং টিকাকরণ রোল-আউটের অন্তর্ভুক্ত।

ফিলিস্তিনি কর্মকর্তারা এই বিধিনিষেধের সমালোচনা করেছেন। শুক্রবার জুম্মা’র নামাজের নেতৃত্ব দানকারী ইকরিমা সাব্রি ইসরায়েলের বিরুদ্ধে আল আকসা মসজিদের বিষয়ে হস্তক্ষেপ করার জন্য করোনাভাইরাস মহামারীকে কাজে লাগানোর” অভিযোগ করেছেন।

ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে যে, ইসরায়েল জেরুজালেমের ওল্ড সিটিকে “সামরিক ঘাঁটিতে” পরিণত করেছে।

কিন্তু ইসরায়েলি কর্মকর্তারা বলেছেন যে, ফিলিস্তিনি নিয়ন্ত্রিত এলাকায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত উচ্চ হারের কারণে তারা পশ্চিম তীর থেকে প্রবেশকারী টিকাপ্রাপ্ত ফিলিস্তিনিদের সংখ্যা ১০,০০০ এর মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখতে চেষ্টা করেছে।

ফিলিস্তিনিদের সাথে ইসরায়েলের সামরিক যোগাযোগকারী সিওজিএটি এক বিবৃতিতে বলেছে, একদিকে ইবাদত ও ধর্মের স্বাধীনতা এবং অন্যদিকে এই অঞ্চলে কোভিড-১৯-এর বিস্তার রোধের জন্য এই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

সূত্রঃ ডন।

আরও পড়ুনঃ পাবনা সদরে কৃষকদের মাঝে বীজ ও সার বিতরণ- এমপি গোলাম ফারুক প্রিন্স

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন