ঈশ্বরদী-আটঘোরিয়ার উন্নয়নে বাবার স্বপ্ন বাস্তবায়নে নিবেদিত গালিব শরিফ

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতাঃ সাবেক সফল ভূমিমন্ত্রী, ভাষাসৈনিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও পাবনা-৪ সংসদীয় আসনে পর পর পাঁচবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে নিবেদিত হয়ে ঈশ্বরদী ও আটঘোরিয়ায় মানবিক কাজ করে চলেছেন তাঁরই পুত্র গালিবুর রহমান শরিফ বলে জানিয়েছেন, ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মকলেছুর রহমান মিন্টু।

পাবনা-৪ আসনের উপ-নির্বাচন নিয়ে তিনি আরো বলেন, আমাদের নেতা ডিলু ভাইয়ের রেখে যাওয়া উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডসহ অসমাপ্ত কাজ শেষ গালিব শরিফই শেষ করতে পারবেন বলে আমি বিশ্বাস করি। করোনাকালে অসহায় মানুষের মাঝে দুটি উপজেলায় বিপুল পরিমাণ ত্রাণ গালিব বিতরণ করে গরীব মানুষদের অভাব দূর করেছেন।

আসন্ন উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া) আসনে গালিব মনোনয়ন পেলে জাতির জনকের স্বপ্ন বাস্তবায়ন ও এলাকার উন্নয়নে সে বাবার মতোই সক্রিয় থাকবেন বলে এই আওয়ামীলীগ নেতা প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।

আটঘোরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মাঝপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল গফুর বলেন, করোনা সংকটে এলাকার মানুষ ছিলো বিপর্যস্ত। প্রয়াত ডিলু ভাই সারাজীবন ঈশ্বরদী ও আটঘোরিয়ার মানুষের পাশে থেকেছেন। দুঃসময়ে মানুষ যেন খেতে না পেয়ে কষ্ট ভোগ করে, এজন্য তাঁরই পুত্র গালিব আটঘরিয়া উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়ন ও পৌরসভায় অসহায় পরিবারের মাঝে ধারাবাহিকভাবে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন। গালিব তাঁর বাবার মতোই ঈশ্বরদী ও আঘোরিয়ার উন্নয়নের স্বপ্ন দ্যাখেন।

উপ-নির্বাচনে তিনি মনোনয়ন পেলে জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং তাঁর বাবার উন্নয়নের স্বপ্ন বাস্তবায়ন হবে বলে আমরা বিশ্বাস করি। আঘোরিয়ার শতকরা ৯০ ভাগ আওয়ামী লীগের নেতা ও কর্মি একজন ভাল মানুষ হিসেবে গালিব শরিফের মনোনয়ন প্রত্যাশা করে বলে তিনি জানিয়েছেন।

ঈশ্বরদীর পাকশী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এনামুল হক বিশ্বাস জানান, গালিবের বাবা আমাদের নেতা ডিলু ভাই আওয়ামী লীগের এমপি-মন্ত্রী হয়ে তার নির্বাচনী এলাকাকে যে পর্যায়ে নিয়ে এসেছিলেন, আর কিছু সময় পেলে তিনি এই অঞ্চলের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়ন, শিল্প ও জীবনমানের আরও পরিবর্তন নিশ্চিত করতে পারতেন। যোগ্য সন্তান হিসেবে গালিব বাবার মতোই এলাকায় নিবেদিতভাবে উন্নয়ন কর্মকান্ড করতে পারবে বলে ইতোমধ্যেই আমাদের বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জনে সে সক্ষম হয়েছে।

ঈশ্বরদীর মুলাডুলি ইউপি’র চেয়ারম্যান সেলিম মালিথা জানান, ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ এমপির জীবনাসানের পর হতে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে তার পরিবার এলাকার অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়িয়ে গালিব ও তাঁর পরিবার ধারাবাহিকভাবে খাদ্যসামগ্রী এবং দুটি ঈদে বস্ত্র বিতরণ করছেন। আমরা জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ব্যক্তি এবং সুশিল সমাজের মানুষ গালিবের বৃক্ষ রোপণের কার্যক্রমকে স্বাগত জানিয়েছি।

আটঘোরিয়ার চাঁদভা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার সাইফুল ইসলাম কামাল জানান, মনোনয়ন পেলে গালিব শরিফ বাবার মতোই এলাকায় ভালো করবে বলে আমি বিশ্বাস করি। শিক্ষিত এই তরুণ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নের সাথে সাথে তার বাবার রেখে যাওয়া অসমাপ্ত কাজগুলো সুন্দরভাবে সমাপ্ত করতে পারবেন।

ঈশ্বরদী পৌর যুবলীগের সভাপতি আলাউদ্দিন বিপ্লব বলেন, শামসুর রহমান শরীফ মারা যাবার পর আমরা অভিভাবকশূন্য হয়ে পড়েছি। তিনি ছিলেন আস্থার কান্ডারী। গালিব শরিফই বাবার শূন্যতা দূর করে স্থানীয়ভাবে আওয়ামী লীগের রাজনীতি শক্তিশালী, ঐক্যবদ্ধ ও বিভেদশূন্য করে গতিশীল এবং চাঙ্গা করতে সক্ষম হবে।

ছাত্রলীগ সভাপতি রাকিবুল হাসান রনি জানান, ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া এলাকার বিপদে-আপদে, পরামর্শ, সহযোগিতা, সহায়তায় প্রয়াত শামসুর রহমান শরিফ ছিলেন বটবৃক্ষ। আমাদের বিশ্বাস তাকে অনুসরণ করেই তার সুযোগ্য সন্তান গালিবুর রহমান শরীফ সাংগাঠনিক ও মানবিক কর্মকান্ড পরিচালনা করছেন। ডিলু ভাইয়ের শূন্যতা পূরণে আসন্ন উপ-নির্বাচনে তারই পুত্র গালিব শরীফকেই আমরা এমপি হিসেবে দেখতে চাই।

গালিব শরিফ বলেন, বাবা মৃত্যুর আগ পর্যন্ত পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন দক্ষতা, বিচক্ষণতা আর আন্তরিকতার সাথে। বাবার শূন্যতা দূর করতে হলে স্থানীয়ভাবে আওয়ামী লীগের রাজনীতি শক্তিশালী, ঐক্যবদ্ধ ও বিভেদশূন্য করে গতিশীল এবং চাঙ্গা করতে হবে। বাবার মৃত্যুর পর সাংগঠনিক কর্মকান্ড মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে থমকে গেলেও নেতাকর্মীদের সাথে আমি যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছি।

বাবার অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করার পাশাপাশি এই নির্বাচনী এলাকাকে আরও আধুনিক, যুগোপযোগী, উন্নয়নমুখী, কর্মসংস্থানসহ আধুনিকায়ন করতে চেয়েছেন গালিবুর রহমান শরীফ।

গত ২রা এপ্রিল পাবনা-৪ আসনের এমপি শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর মৃত্যুতে এই আসনটি শূন্য ঘোষিত হয়। গত ১৬ই আগষ্ট জাতীয় সংসদের পাবনা-৪ আসনসহ ৫টি আসনের উপ-নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশী দলীয় প্রার্থীদের ফরম সংগ্রহের আহব্বান জানায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।

জানা গেছে, রবিবার পর্যন্ত এই আসনে মোট ২৮ জন মনোনয়ন ফরম গ্রহন করেছেন। মন্ত্রী পুুত্র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য গালিবুর রহমান শরিফ গত ২০শে আগষ্ট মনোনয়ন ফরম গ্রহন এবং ২২শে আগষ্ট ফরম আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে জমা দিয়েছেন।

রবিবার বিকেলে নির্বাচন কমিশনের সভা শেষে এই আসনসহ ৫টি আসনে তপশীল ঘোষণা করা হবে বলে জানা গেছে।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন