কুমিল্লাতে ফেসবুকের মাধ্যমে দেড় বছর পর প্রতিবন্ধী ছেলেকে ফিরে পেলেন মা

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ প্রায় দেড় বছর আগে কুমিল্লার নাঙ্গলকোট থেকে নিখোঁজ হওয়া এক প্রতিবন্ধী যুবককে ফিরে পেয়েছে তার স্বজনরা

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকের মাধ্যমে নিখোঁজ ওই ব্যাক্তিকে মঙ্গলবার বিকেলে নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলা থেকে ফিরে পান পরিবারের লোকজন।

হারিয়ে যাওয়া স্বজনকে দীর্ঘ দিন পর ফিরে পাওয়ায় আনন্দে ভাসছে পরিবারসহ গ্রামের লোকজন। ফিরে পাওয়া মামুন হোসেন মজুমদার কুমিল্লার নাঙ্গলকোট থানার মানিক গঙ্গা গ্রামে আব্দুল জলিল মজুমদারের বড় ছেলে।

২০২০ সালের ধানের মৌসুমে চাচাতো ভাই-বোনের সাথে লোকোচুরি খেলতে গিয়ে হারিয়ে যায় মামুন। প্রতিবন্ধী ছেলে চারদিকে খুঁজে না পেয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হন বাবা জলিল মজুমদার। এতেও সন্ধান মিলেনি মামুনের। কেঁটে যায় দীর্ঘ দেড় বছর।

মামুনের মামাতো ভাই বলেন, পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে মামুন ৪র্থ। কয়েক বছর আগে টাইফয়েড জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মানুষিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে।

গত ধানের মৌসুমে চাচাতো ভাই-বোনের সাথে লোকোচুরি খেলতে গিয়ে হারিয়ে যায় সে । শত খুঁজেও সন্ধান মিলেনি তার। সবাই ভেবে ছিল হয়তো মারা গেছে।

গতকাল নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার শাওন খাঁনের ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে মামুনকে পাওয়া গেছে বলে জানতে পারি। শাওন খাঁনের সাথে যোগাযোগ করি আমরা মামুনের সাথে কথা বলে নিশ্চিত হই মামুন তার কাছে আছে।

শাওন খাঁনের সাথে কথা বললে তিনি জানান, গতকাল আমার জেঠা একটা ছেলেকে আমার কাছে নিয়ে আসে। প্রাথমিক অবস্থায় আমরা বুঝতে পারি ছেলেটা মানুষিক ভারসাম্যহীন।

পরে আমি তাকে পাওয়া গেছে মর্মে ফেসবুক তার ছবি দিয়ে পোষ্ট করি। কয়েক ঘন্টার মধ্যে মামুনের মামাতো ভাই আমাকে কল দেয়। এবং মামুনের পরিচয় দেয়।

আমি বিষয়টা স্থানীয় ইউপি সদস্যকে জানাই। মামুনের বাবা-মা আমাদের বাড়িতে এলে সবার উপস্থিতিতে তথ্য প্রমাণ মিলেয়ে মামুনকে তার পরিবারের কাছে তুলে দেওয়া হয়।

আরও পরুনঃ সিরাজগঞ্জের সলঙ্গায় প্রাইভেট কারের ধাক্কায় মোটর সাইকেল আরোহীর মৃত্যু

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন