টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে নিষিদ্ধ চায়না জাল বিক্রির দায়ে ব্যবসায়ীকে জরিমানা

খায়রুল খন্দকার টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে নিষিদ্ধ চায়না জাল বিক্রির দায়ে নূরনবী (৫০) এক ব্যবসায়ীকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে মাধ্যমে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে।

মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) বিকালে উপজেলার গোবিন্দাসী বাজারে ফাতেমা এন্টারপ্রাইজ নামে এক প্রতিষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইশরাত জাহানের নির্দেশে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ আল রনী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা (চঃদাঃ) এটিএম সামসুজ্জামান,থানা পুলিশ ফোর্স ও নৌপুলিশ ফোর্স এর ২ টি টিম, এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও সাংবাদিকবৃন্দ প্রমূখ।

এ বিষয়ে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এটিএম শামসুজ্জামান আই বিডি নিউজ কে বলেন, চায়না জাল, কারেন্ট জালসহ যে জাল দিয়ে পোনা মাছ ধরা হয় সেসব জাল আমাদের দেশে নিষিদ্ধ।

এ সর্বনাশা জাল বন্ধ করতে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া হবে। আমরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গোবিন্দাসী বাজারে কয়েকটি দোকানে অবৈধ চায়না জাল বিক্রি হচ্ছে জানতে পারি ।

সংবাদ পেয়ে আমরা বাজারে অবৈধ জাল বিক্রির বেশ কয়েকটি দোকানে তল্লাশি করা হয়। প্রশাসন আসার খবর পেয়ে ফাতেমা এন্টারপ্রাইজের মালিক নূরনবী দোকান ও গোডাউন তালা লাগিয়ে পালিয়ে যায়।

বিভিন্ন মাধ্যমে অবৈধ জাল ব্যবসায়ী নূরনবী সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে কিন্তু ব্যবসায়ী নুরনবী প্রশাসন কে বৃদ্ধা আঙুল দেখিয়ে প্রায় ৩ ঘন্টা পর আসেন মামু খালুর জোর নিয়ে।

এর আগেই ফাতেমা এন্টারপ্রাইজ গোডাউন কে ঘিরে রাখেন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

বাজার বণিক সমিতির সভাপতি / সম্পাদক /সদস্যদের সহযোগিতায় অবৈধ জাল ব্যবসায়ীকে ডেকে এনে গোডাউন খুলতে সক্ষম হন প্রশাসন।

বাজার বণিক সমিতির সভাপতি সরোয়ার আকন্দ আই বিডি নিউজ কে বলেন, আমার এই বাজারে শুধু অবৈধ জাল নয়, অবৈধ ভাবে কোন মালামাল বেচাকেনা করতে পারবে না। যদি কেউ অবৈধভাবে ক্রয়- বিক্রয় করে সে কোনোভাবেই ছাড় পাবে না।

নিবার্হী ম্যাজিটেষ্ট সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ আল রনী আই নিউজ বিডি কে বলেন, গোপন সূত্রের খবরের প্রেক্ষিতে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এটিএম শামসুজ্জামান কে সঙ্গে নিয়ে গোবিন্দাসী বাজারে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করি।

এসময় নিষিদ্ধ চায়না জাল বিক্রির দায়ে গোবিন্দাসী বাজারে ফাতেমা এন্টারপ্রাইজকে নগর ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করি। এ সময় সাংবাদিকরা নির্বাহী ম্যাজিটেষ্ট কে নিষিদ্ধ চায়না জাল কেন জব্দ করা হলো না ?

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন নিষিদ্ধ ৫ বস্তা চায়না জালগুলো প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে মৎস্য কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ।

আরও পরুনঃ সিরাজগঞ্জের তাড়াশে কমিউনিটি ক্লিনিকে সন্ত্রাসী হামলা

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন