নওগাঁর সাপাহার সীমান্তে অবৈধ ভাবে অনুপ্রবেশ কালে ৮ জন আটক

(নওগাঁ)প্রতিনিধিঃ নওগাঁর সাপাহার সীমান্তে ৮ জন বাংলাদেশি ভারতে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা খেটে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ কালে সোমবার দিবাগত রাত ৩টায় বিজিবির হাতে আটক হয়েছে।

জানাগেছে, গত কয়েক মাস আগে যশোর ও সাতখীরা সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশ থেকে ৮জন বাংলাদেশি কাজ করার উদ্দেশ্যে অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ করে এবং ভারতে বিভিন্ন কাজের সাথে ৮ জন বাংলাদেশি জড়িযে পড়ে, এসময় ভারতে করোনা মহামারী প্রকোপ আকার ধারণ করায় ভারতের প্রশাসন কড়াকড়ি অবস্থানে গেলে তখন ওই বাংলাদেশিরা ভারতীয় পুলিশের কাছে অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে আটক হয়।

এবং তারা তাদের বৈধ কাগজপত্র দেখাতে না পারায়, অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশের দায়ে দমদম সেন্টাল জেলে বিভিন্ন মেয়াদে ৮ জন বাংলাদেশিকে সাজা প্রদান করেন। এবং সাজা শেষে গতকাল সোমবার তাদের ছেড়ে দিলে ভারতীয় বিএসএফ রাতের আধারে ভারতীয এলাকার ১৫৯ বিএরএস পান্নাপুর সীমান্ত পিলার এলাকা দিয়ে জোর পূর্বক বাংলাদেশে প্রেরণ করেন।

এসময় নওগাঁ ব্যাটিলিয়ন ১৬ বিজিবির হাপানিয়ার ক্যাম্পের জোয়ানরা টহলরত অবস্থায় তাদের ২৩৭ পিলার এলাকায় পূর্ণভবা নদীতে সাতার কেটে বাংলাদেশে প্রবেশ করলে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তের হরিণ মাঠ নামক স্থানে নিম্নলিখিত বাংলাদেশি নারী-পুরুষদের ভারত থেকে অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে ৮ জনকে বিজিবি আটক করেন।

আটককৃতরা হলেন সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ থানার আঃ রহমান গাজীর ছেলে, জহুর আলী গাজী(৩৭), জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি থানার রায়পুর গ্রামের আতিয়ার রহমানের ছেলে শরিফুল ইসলাম(২৭), পিতা-মোঃ আতিয়ার রহমান, সাতখিরা জেলার শ্যামনগর থানার শ্রীফলকাটি গ্রামের শামছুল গাজি এর ছেলে আবু হাসান(৩২) এবং

সাতখিরা জেলার শ্যামনগর থানার শ্রীফলকাটি গ্রামের আবু হাসান এর স্ত্রী নুরনাহার বেগম(২৭), সাতখিরা জেলার কালিগঞ্জ থানার আমিয়ান গ্রামের জহুর আলীর স্ত্রী সালমা পারভীন (৩০),নড়াইল জেলার কালিয়া থানার ফুলদা গ্রামের মৃত আলিফ খালাসির মেয়ে সোনিয়া খাতুন(২৫), ময়মনসিংহ জেলার নতুন বাজার এলাকার জাহাঙ্গীর আকন্দের মেয়ে সাদিয়া খন্দকার ইভা(২৪), এবং কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী উপজেলার নওদাপাড়া গ্রামের আবু হোসেনের মেয়ে পপি আক্তার(২১)।

এ বিষয়ে নওগাঁ ব্যাটিলিয়ন ১৬ বিজিবির হাপানিয়ার ক্যাম্পের নায়েব সুবেদার মোহাম্মদ আজিজুল ইসলাম জানান, সোমবার দিবাগত রাত ৩ টার দিকে আমরা টহলরত অবস্থায় নদীর পানিতে সাঁতার কাটার শব্দ পেলে নদীর কাছে আমাদের জোয়ানরা তাদের গতিরোদ করে আটক করে এবং রাতের আধারে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশের কারনে অনুপ্রবেশকারীদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে সাপাহার থানায় সোপর্দ করি।

এবিষয়ে ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) আল মাহমুদের সাথে কথা বললে তিনি বিষয়টি নিম্চিত করেন এবং তিনি জানান যেহেতু তারা ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে তাই তাদের ১৪ দিন কোয়ারান্টাইন রেখে তাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ কন্ট্রোল এন্ট্রি এক্ট ৪ ধারায় মামলা দিয়ে জেলা হাজতে প্রেরণ করা হবে।

আরও পড়ুনঃরাজশাহীর এমপি ফারুক চৌধুরীর করোনা সামগ্রী অক্সিজেন ও পালস অক্সিমিটার উপহার

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন