নোয়াখালী চাটখিলে ভুয়া এমবিবিএস চিকিৎসক আটক ২ বছরের কারাদণ্ড।

নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালী চাটখিলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ফয়সাল কবির (৩৬) নামের একজন ভূয়া চিকিৎসক আটক।

জানা যায়, তিনি দীর্ঘদিন থেকে চাটখিলের বিভিন্ন প্রাইভেট হাসপাতালর পাশাপাশি লক্ষীপুর জেলার রামগঞ্জের রয়েল হাসপাতাল ও চাটখিল এহছানিয়া হাসপাতালে এ্যানেসথেসিয়া সার্জন পরিচয় দিয়ে চিকিৎসা দিয়ে আসছেন।

নোয়াখালী জেলা বিএম-এর সভাপতি ডা. এম এ নোমানকে পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত ৩৯তম বিসিএস চিকিৎসক ডা. ফয়সাল কবির তথাকথিত ভুয়া চিকিৎসক ফয়সাল কবিরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলে তিনি তার নিজ হাসপাতালে প্যাকটিস করার জন্য ডেকে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করেন এবং সন্দেহ হলে, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে খবর দেন।

চাটখিল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সালেহ মোহাম্মদ মোসা জানান, ডা. ফয়সাল কবির নামে তথাকথিত ডা. উপযুক্ত কাগজপত্র সার্টিফিকেট দেখাতে পারেনি এবং ৩৯তম বিসিএসের একজন ফয়সাল কবির নামের একজন চিকিৎসক আছে তিনি পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত আছে।

তার বিএমডিসি নাম্বার সংগ্রহ করে তা ব্যবহার করে দীর্ঘদিন চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে চিকিৎসা দিয়ে আসছেন, এবং আমরা পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসকের সাথে যোগাযোগ করি এর সত্যতা নিশ্চিত হই, এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে এই ভূয়া চিকিৎসকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতকে সহযোগিতা করেন চাটখিল থানা পুলিশ। ভুয়া চিকিৎসক রাজধানী ঢাকা মগবাজারের বাসিন্দা মাহফুজুর রহমান ওসমানের ছেলে।

চাটখিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ারুল ইসলাম জানান, ভুয়া চিকিৎসককে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে দুই বছরের কারাদণ্ড
আদেশ প্রদানের পর পর পুলিশ থাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসেন এবং সন্ধায় জেলহাজতে ফেরন করা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ২০ জনকে জরিমানা

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন