পাবনাতে ৭ কোটি টাকা ব্যয়ে এলজিইডির রাস্তা নির্মাণ হচ্ছে পোড়ামাটি দিয়ে!

পাবনা প্রতিনিধি : প্রায় ৭ কোটি টাকা ব্যয়ে সরকারের আম্পান প্রকল্পের আওতায় এলজিইডি পাবনার তত্বাবধানে জেলার সদর উপজেলার জালালপুর থেকেএকদন্ত বাজার পর্যন্ত ৭ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণে ব্যাপক অনিয়ম ও ইট খোয়ার বদলে  দিয়ে কাজ করার অভিযোগ উঠেছে পাবনার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স জিনাত আলী জিন্নাহ লিমিটেডের এক কনস্ট্রাকশন ফার্মের বিরুদ্ধে।

রাস্তার সিডিউল অনুযায়ী মালামাল না দিয়ে অতিমাত্রার নিম্নমানের ইটের খোয়া ব্যবহার করা হচ্ছে। দেখাশোনার জন্য এলজিইডির কর্মকর্তা থাকার কথা থাকলেও মাঠে নেই তারা। ঠিকাদার ইচ্ছামতো নয়ছয় কাজ করে যাচ্ছে।

পাবনা সদর উপজেলার বহুল ব্যবহৃত জালালপুর টু একদন্ত বাজারের রাস্তা। রাস্তাটি মেরামত ও সাইড প্রশস্থতার জন্য সরকার আম্পান প্রকল্পের আওতায় ৬ কোটি ৪০ লাখ ২৬ হাজার ১৯৬ টাকা বরাদ্ধ দিয়েছেন। এলজিইডি পাবনার তত্বাবধানে রাস্তাটি ১৮ ফুট চওড়া এবং ৩ ইঞ্চি ঢালাই দিয়ে মেরামত করার কথা রয়েছে।

রাস্তারটির কাজ পান পাবনার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জিনাত আলী জিন্নাহ লিমিটেডের কনস্ট্রাকশন ফার্ম। কাজের শুরুতেই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠিানটি প্রশস্থ সাববেজ দুটি ভালমতো রোলার না করেই তড়িঘড়ি করে নিম্নমানের খোয়া( পোড়া মাটি) ব্যবহার করছেন। এতে এলাকাবাসি ক্ষিপ্ত হয়ে রাস্তার কাজের বাঁধা দেন।

এলাকার উগ্রগড়, জোয়ারদহ, হামিদপুর ও গয়েশপুর গ্রামের মিজান হুজুর, আব্দুল কাদের মাষ্টার, আজিজল মল্লিকসহ অনেকে অভিযোগ করে বলেন, যে তাদের আগের রাস্তাই ভালো ছিল। মেরামতের নামে নয়ছয় ইট ব্যবহার করে রাস্তা করলে তা ৬ মাসও টিকবে না।

এলাকাবাসি এলজিইডির কর্মকর্তাদের প্রতি অভিযোগ করে বলেন, তারা ঠিকাদারের কাছে মাথা বিক্রি করে দিয়েছে । এজন্য কেউই মাঠে নেই। ঝুলানো
হয়নি কোন কার্যতালিকার(ওয়ার্ক অর্ডার) সাইনবোর্ড।

এলাকাবাসি আরো অভিযোগ বলেন, ঠিকাদার রাতের আঁধারে পোড়ামাটি এনে দিনের বেলায় কয়েক ট্রাক পিবেট ভেঙ্গে তার উপর ছিটিয়ে দিয়েছে। ইতিপূর্বে এই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানই জেলার সাঁথিয়া উপজেলা ও ফরিদপুর উপজেলায় রাস্তার কাজ দুই নম্বর করতে গিয়ে এলাকাবাসির বিক্ষোভের মুখে পড়ে।

এই জিন্নাহ ঠিকাদারের বিরুদ্ধে সাঁথিয়া এলাকার মানুষ মানববন্ধনসহ বিভিন্ন মিছিল মিটিং করায় সেখান থেকে পোড়ামাটি সরিয়ে এনে পরে ভালো ইট খোয়া দিয়ে রাস্তার কাজ করতে বাধ্য হয়েছিল জিন্নাহ ঠিকাদার।

এব্যাপারে গয়েশপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ বলেন, জননেত্রী জনগনের সুবিধার্তে কোটি কোটি টাকা
দিচ্ছেন রাস্তাঘাটের মান উন্নয়ন করতে। সেখানে দুই নম্বর কাজ তারা কখনই মেনে নেবেন না। দরকার হলে তারা কাজ বন্ধ করে দিয়ে আন্দোলন করবেন।

কাজের বিষয় নিয়ে কথা বলতেই ঠিকাদার জিনাত আলী জিন্নাহ বলেন, তিনি কখনই কাজ খারাপ করেন না। সব সময় ভালো কাজ করেন। ঠিকাদারী কাজে তার যথেষ্ঠ সুনাম রয়েছে।

এব্যাপারে এলজিইডি পাবনার নির্বাহী প্রকৌশলী আনিসুর রহমান মন্ডল জানান, তিনি সবেমাত্র ২ দিন হলো এখানে যোগদান করেছেন। রাস্তার বিষয়ে
অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগ পাওয়ার পরপরই তিনি সংশ্লিষ্ট ইঞ্জিনিয়ারকে বিষয়টি দেখভালের নির্দেশ দিয়েছি।

সরেজমিনে সঠিক তদন্ত করে নিম্নমানের এই পোড়ামাটি সরিয়ে ভালো ইটখোয়া ব্যবহার করে রাস্তাটি মেরামত করবেন এমনটাই প্রত্যাশা এলাকাবাসির।

আরও পড়ুনঃ পাবনাতে প্রতিবন্ধী নারীকে শ্লীলতাহানির ঘটনায় আটক ১

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন