পাবনার চাটমোহরে মাদক সেবনের টাকা না পাওয়ায় মাকে হত্যা

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধিঃ পাবনার চাটমোহরে যমুনা রানী সরকার (৫৫)-কে হত্যার দায় স্বীকার করেছেন ছেলে স্বপন কুমার সরকার (২৭)।

ছেলে স্বপন কুমার সরকার মায়ের কাছে মাদক সেবনের জন্য টাকা চেয়ে না পাওয়ায় বালিশ চাপা দিয়ে মাকে হ‌ত্যা করেন তিনি।

শুক্রবার (১৯ মার্চ) দুপুরে আদালতে তিনি এই দোষ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

ওসি জানান, আদালতে দোষস্বীকারের আগে পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে স্বপন স্বীকার করেছেন, তিনি তার মাকে বালিশচাপা দিয়ে হত্যা করেছেন।

পরে বাড়ির পাশের বাগানে গিয়ে ঝুলিয়ে রাখার চেষ্টা করেছেন, কিন্তু না পেরে পরে গাছের সঙ্গে হেলান দিয়ে বসিয়ে রেখে চলে যান।

আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘যমুনা রানী অন্যের বাড়িতে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন।

স্থানীয় ডাকঘরে তার বেশ কিছু টাকা গচ্ছিত রয়েছে।

স্বপন মাঝেমধ্যেই টাকার জন্য মাকে মারধর করতেন।

স্বপন এর আগে মাদক মামলায় জেল খেটেছেন।

তিনি আরও বলেন, নিহত যমুন রানী সরকারের আরেক ছেলে রতন সরকার মুসলিম সম্প্রদায়ে বিয়ে করে ধর্মান্তরিত হয়ে বাড়ির পাশেই ভাড়া বাড়িতে থাকেন। তাকেও আটক করা হয়েছিল। এরপর তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) সকালে পাবনা পৌরসভার দোলং মহল্লার মৃত গোসাই সরকারের বাড়ির পাশ থেকে তার স্ত্রী যমুনা রানী সরকারের লাশ উদ্ধার করেন প্রতিবেশীরা। এরপর তারা পুলিশে খবর দেন।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনা ঘটায় রাতেই নিহতের মেয়ে সরস্বতী রানী কুন্ডু বাদী হয়ে থানায় হত‌্যা মামলা দায়ের করেন।

এরপর রাতে যমুনা রানী সরকারের ছেলে স্বপন কুমার সরকার ও রতন কুমার সরকারকে আটক করে পুলিশ।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন