পাবনার চাটমোহরে ১৫ হাজার মেট্রিক টন গম উৎপাদন

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধিঃ পাবনার চাটমোহরে এবছরে গমের ভাল ফলন হয়েছে।

এবং বর্তমান বাজারে গমের দামও বেশ ভাল। ভাল ফলন ও বাজার দর ভাল হওয়ায় চাটমোহরের গম চাষীদের চোখে মুখে এখন হাসির ঝিলিক। তবে যারা বিনা চাষে গম চাষ করেছেন তাদের উৎপাদন খরচ কম হওয়ায় তারা বেশি লাভবান হয়েছেন।

চাটমোহর উপজেলা কৃষি অফিস সূত্র জানায়, এ বছর চাটমোহরে ৪ হাজার ৩৪০ হেক্টর জমিতে গম চাষ হয়েছিল। হেক্টর প্রতি গড় ফলন পাওয়া গেছে প্রায় সাড়ে ৩ মেট্রিক টন। এ হিসেব মতে চাটমোহরের ১১ টি ইউনিয়ন ও একটি পৌর এলাকায় ১৫ হাজার ৩১১ মেট্রিক টন গম উৎপাদন হয়েছে।

উপজেলার বেজপাড়া গ্রামের মৃত তাজিরুদ্দিন সরদারের ছেলে, গম চাষী আবু বকর সিদ্দিকী বলেন, “এ বছর আড়াই বিঘা জমিতে গম বুনেছিলাম। গম বীজ বপনের সময় কোন জমিতেই চাষ বা লাঙল দেইনি। গত রবি মৌসুমের শেষ দিকে এসে জমি থেকে ধান কাটার ঠিক দু একদিন আগে কর্দমাক্ত জমিতে গমের বীজ ছিটিয়েছিলাম।

বীজ, সার, বালাইনাশক, সেচ ও কাটাবাবদ বিঘা প্রতি প্রায় চার হাজার টাকার মতো খরচ হয়েছিল। গড়ে প্রায় ১৫ মন হারে ফলন পেয়েছি। বর্তমানে চাটমোহরের হাট বাজারে প্রতিমন গম ১ হাজার ৫০ টাকা থেকে ১১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সে হিসাবে এক বিঘা জমিতে প্রায় দশ হাজার টাকা লাভ পেয়েছি। পাশাপাশি গমের ভুশি ও পেয়েছি।

আবু বকর সিদ্দিকীর মতো এলাকার শত শত কৃষক বিনা চাষে গম চাষ করে লাভবান হয়েছেন।

কৃষকেরা জানান, নিচু জমির ধান কাটতে এমনিতেই দেরী হয়ে যায়। এরপর জমি চাষ করার উপযোগি হতে আরো কিছুদিন অপেক্ষা করতে হয়। তাই আমরা এ অপেক্ষা না করে রবি মৌসুমের শেষ দিকে ধান কাটার দু-একদিন আগে জমিতে গমের বীজ বপন করি। এ পদ্ধতিতে উৎপাদন খরচ কম হয় পাশাপাশি ফসল পেতে সময় ও কম লাগে।

অপরদিকে উপজেলার রামনগর গ্রামের গম চাষী মুনজিল হোসেন জানান, জমি চাষ করে গম আবাদে চাষ, বীজ, সার, কীটনাশক, কাটা ও মাড়াইসহ বিঘা প্রতি খরচ হয়েছে ৭ হাজার ৩৫০ টাকা। বিঘা প্রতি ফলন পেয়েছেন ১৫ মন। প্রতি বিঘায় লাভ হয়েছে ৮ হাজার ৪০০ টাকা।

এবং চাটমোহর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এ.এ. মাসুম বিল্লাহ জানান, এ বছর চাটমোহরে ৪ হাজার ৩৪০ হেক্টর জমিতে গম চাষ হয়েছে। গত বছর ৪ হাজার তিন’শ ১০ হেক্টর জমিতে গম চাষ হয়েছিল। গত বছরের চেয়ে এবার ৩০ হেক্টর জমিতে গম চাষ বেশি হয়েছে।

তাছাড়া কিছু নিচু জমিতে বিনা হালে গম চাষ করেছেন কৃষক। আবহাওয়া গম চাষের পক্ষে থাকায় অন্য যে কোন বছরের চেয়ে এ বছর উৎপাদনও ভাল হয়েছে। আগাম উফশী বারী গম-৩৩ বিঘা প্রতি ১৪ থেকে ১৫ মন ফলনও হয়েছে। নিচু জমিতে অপেক্ষাকৃত ফলন কম হয়েছে। সব মিলিয়ে গম চাষ করে খুশি হয়েছেন এ এলাকার কৃষকেরা।

আরও পড়ুনঃ নাটোরের লালপুরে কৃষকের সোনালী স্বপ্ন ভঙ্গ

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন