পাবনার ভাঙ্গুড়ায় শেকলে পা বেধে নির্যাতন- উদ্ধার করল থানা পুলিশ

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধিঃ পাবনার ভাঙ্গুড়ায় পায়ে শেকল দিয়ে বেধে নির্যাতনকালে মাঃ শাহ আলম (৪০) নামের এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করেছে ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার ৮ জুন রাতে ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশ উপজেলার অষ্টমনিষা ইউনিয়নের বড় বিশাকোল গ্রামে হতে তাকে উদ্ধার করা হয়। সে পৌর সদরের মসজিদ পাড়া মহল্লার শহীদুল প্রামানিকের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার অষ্টমনিষা ইউনিয়নের বড় বিশাকেল গ্রামের জনৈক মহিলার সাথে শাহ আলমের ধর্ম-ভাই বোনের সম্পর্ক রয়েছে। সেই সুবাদে শাহ আলম মাঝে মধ্যে তার ধর্ম বোনের বাড়িতে বেড়াতে যেত।

কিন্তু ওই মহিলার স্বামীর সাথে তারই প্রতিবেশী মৃত আজিদ সরদার এর ছেলে মোঃ নওশাদ সরদার (৩২) গং এর মধ্যে জমি-জমা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এমতাবস্থায় মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে মোঃ শাহ আলম তার ধর্ম বোনের বাড়িতে বেড়াতে যায়।

এমন সময় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মোঃ নওশাদ সরদার এর নেতৃত্বে নওশাদ এর ভাই সহ অন্যান্যরা ওই মহিলার ধর্ম ভাই শাহ আলম ও উক্ত মহিলার মধ্যে অবৈধ সম্পর্ক আছে দাবী করে রাত ৯টার দিকে তাদের দুজনকে টেনে হেঁচড়ে বড় বিশাকেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বারন্দায় শেকল দিয়ে বেঁধে মারধর করে আটকিয়ে রাখে।

স্থানীয়দের মাধ্যমে এমন খবর পেয়ে ভাঙ্গুড়া থানার ওসি মুহম্মদ আনোয়ার হোসেন রাত সাড়েম ১২টার দিকে সঙ্গীয় অফিসার সহ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

এ ঘটনায় শাহ আলম বাদী হয়ে ভাঙ্গুড়া থানায় ১৫ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। পুলিশ অভিযুক্ত নওশাদ কে আটক করেছে।

ঘটনার বিষয়ে ভাঙ্গুড়া থানার ওসি মুহম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন, অভিযুক্ত একজনকে আটক করে বিজ্ঞ আদালতে সোর্পদ্য করা হয়েছে। অন্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আরও পড়ুনঃ পাবনার আটঘরিয়ায় ৪টি পাকা সড়ক কাজের উদ্ভোধন- এমপি নুরুজ্জামান বিশ্বাস

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন