পাবনার ভাঙ্গুড়ায় সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে কোরবানীর হাট

স্টাফ রিপোর্টারঃ পাবনার ভাঙ্গুড়ায় কোভিড-১৯ এর সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে আসন্ন কোরবানীর পশুর হাট বসেছিল। গতকাল শনিবার ১০ জুলাই চলন বিলের অঞ্চলের ঐহিত্যবাহী শরৎনগর কোরবানীর পশুরহাটে কোভিড -১৯ এর সরকার ঘোষিত বিধিমেনে কোরবানীর পশুর শেষ হয়েছে।

সরেজমিন শনিবার হাটের দু’য়ের অধিক প্রবেশ পথ ঘুরে ঘুরে দেখা গেছে, প্রত্যেকটি প্রবেশ পথে বসানো হয়ে ছিল কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনী।

প্রবেশ দ্বারের নিরাপত্তা চৌকি গুলেতে একাধিক স্বেচ্ছাসেবক মুখে শতভাগ মাস্ক পরিধান, সাবান পানি দিয়ে হাত ধৌতকরণ নিশ্চিত করেই হাটে আগত পশু বিক্রেতা ও ক্রেতাকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

পাশাপাশি মাইকিং করে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হাটে প্রবেশ নিশ্চিত করে। প্রয়োজন শেষে দ্রুত হাটের স্থান ত্যাগ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

হাটের মোড়ে মোড়ে স্বেচ্ছাসেবকরা তাপমাত্রার যন্ত্রদিয়ে বিক্রেতা – ক্রেতার শরীরের তাপমাত্রা মেপে হাটে প্রবেশ করানো করতে দেখা গেছে।

হাটের শুরুতে পৌর মেয়র গোলাম হাসনাইন রাসেল, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ আশরাফুজ্জামান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাওছার হাবীব, থানার অফিসার ইনচার্জ মুঃ ফয়সাল বিন আহসান, গণমাধ্যম কর্মীবৃন্দ পরিদর্শন করেন।

চলনবিল অঞ্চলের ঐহিত্যবাহী শরৎনগর কোরবানীর পশুর হাটে আসা সাধারণ খামারী, ক্রেতা – বিক্রেতা ও ব্যবসায়ীবৃন্দ সরকারি স্বাস্থ্য বিধি মেনে পশু ক্রয়- বিক্রয় করতে পারায় হাট কর্তৃপক্ষের ভূয়সী প্রশংসা করেছে।

হাটের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মেয়রের সার্বিক তত্বোবধানে পৌর সভার কাউন্সিলর বৃন্দ, পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারি বৃন্দ, উপজেলা ও থানা প্রশাসন, স্বাস্থ্য বিভাগের চিকিৎসক বৃন্দ মিলে সরকারি স্বাস্থ্য বিধি বাস্তবায়নে সমস্ত হাট অনুসরণে কাজ করেছেন।

এ মুহুর্তে হাট বসার ব্যাপারে পৌর মেয়র গোলাম হাসনাইন রাসেল বলেন, করোনা কালীন সময়ে পর পর ৪/৫ টি পশু ক্রয়- বিক্রয়ের হাট ছিল। আসন্ন ইদুল আযহার কারণে সরকারি নির্দেশনা পেয়ে কোভিড-১৯ এর স্বাস্থ্য বিধি মেনে জনস্বার্থে কোরবানীর পশুর হাট বসানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।

আরও পরুনঃ পাবনার আটঘরিয়ায় মাদক ব্যবসায়ীদের কারণে অতিষ্ট এলাকবাসী

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন