পাবনার ভাঙ্গুড়ায় ৫ মাসের অন্তঃস্বত্বা গৃহবধুকে হত্যা

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ পাবনার ভাঙ্গুড়ায় পাঁচমাসের অন্তঃসত্ত্বা এক গৃহবধুকে স্বামী শাশুড়ী ননদী মিলে বেধরক মারপিট করে হত্যা করার অভিযোগে স্বামী সুব্রত হালদার(২৪)কে আটক করেছে।

ঘটনার সূত্রে জানা গেছে, ভাঙ্গুড়া পৌর সভার দঃমেন্দা ম্যাবোলার ঝড়ি হালদারের পুত্র সুব্রত হালদার প্রায় ৩ বছর পূর্বে জয়পুর জেলার পাঁচবিবি পৌর এলাকার পরিমল হালদারের কন্যা সীমা হালদার ওরফে মাধবীর সাথে সনাতন ধর্মীয় বিয়ে হয়ে ঘর সাংসার করে আসছিল।

এলাকাবাসী জানান, সীমার স্বামী সুব্রত হালদার বিয়ের পর থেকেই কারণে অকারে যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে মারপিট করে আসছিল।

এর ধারাবাহিকতায় গত কাল মঙ্গল সকাল থেকে স্বামী শাশুড়ী ও ননদী মিলে কয়েক ঘরের দরজা আটকিয়ে গৃহবধু সীমা মারপিট করতে থাকে।

এ দিন বিকাল ৬টার দিকে প্রতিবেশী স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম কে সংবাদ দেয়।

এ সময় কাউন্সিলর স্বামী শাশুড়ীকে গৃহবধুর সাথে ঝগড়াবিরোধ করতে নিষেধ করে বাড়ি চলে যায়।

এর কিছু সময় পড়ই ঔই গৃহবধুকে বাড়ির লোকজন গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করছে প্রচার করে ভাঙ্গুড়া স্বাস্থ্য কেন্দ্র নিয়ে যায়।

হাসপাতালের কর্তব্য চিকিৎসক সহকারি সার্জন মনজেল আহমেদ তাকে মৃত ঘোষনা করলে স্বামী ও বাড়ির লোকজন গৃহবধুকে হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যায়।

মঙ্গলবার ২৭ জুলাই রাতেই ভাঙ্গুড়া থানায় একটি অস্বাভাবিক মামলা হলে পুলিশ লাশ গৃহন করে মর্গে প্রেরণ করে।

ভোর রাতেই সুদুর জয়পুর হাটথেকে গৃহবধুর পিতা মাতা আত্মীয় স্বজন স্বীমার শ্বশুর বাড়িতে গেলে আর্তচিৎকারে বাতাস ভারী উঠে।

বেলা ৫টার মর্গে থেকে ভাঙ্গুড়ায় নিহত সীমার লাশ পৌছিলে করুন দৃশ্যে বাতাস ভারি হয়ে যায়।

বুধবার ২৮ জুলাই বিকালে গৃহবধুর পিতা পরিমল হালদার বাদী হয়ে গৃহবধুর স্বামী – শ্বশুড় -শাশুড়ী কে অভিযুক্ত করে ৩০৬ ধারায় হত্যা প্রচোনায় অভিযুক্ত একটি নিয়মিত মামলা করেন।

এ দিকে মামলার পর পরই পুলিশ গৃহবধুর স্বামী সুব্রত (২৪) আটক করে থানা হেফাজতে নিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ পাবনার চাটমোহরে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন