পাবনায় প্রশাসনকে না জানিয়ে চলছে কোভিড ১৯ টেষ্ট

পাবনা প্রতিনিধি: পাবনায় চলছে কোভিড ১৯ এর আরএনএ চেষ্ট জানেন না জেলা প্রশাসন ও সিভিল সার্জন। জড়িতদের কায়ক্রম নিয়ে সন্দেহ করছে সচেতন মহল।

জানা গেছে, পাবনা হাসপাতাল রোডে রউফ মালিথা মাকের্টে ডিএনএ সলিউশন নামের একটি প্রতিষ্ঠান কোভিড ১৯ এর টেষ্ট করানো হচ্ছে। অনেকটা গোপনেই এই কার্যক্রম চলছে। মোবাইল এর মাধ্যমে যোগাযোগ করে রক্ত দিচ্ছে রোগীরা। এর পরের দিনই রেজাল্ট পাচ্ছে রোগীরা।

রেজাল্টে পত্রে স্বাক্ষর করেছেন ডা.আফরোজা আসাদ ও আবু সাফিন এরা দুজনই মলিকিউলার ডায়াগসিস. পান্থপথ ঢাকা এর কনসালটেন্ট ও সায়েন্টিফিক অফিসার।

এ ব্যাপারে পাবনা শহরের গোপালপুর এলাকার মৌসুমী সুলতানা নামের একজন জানান, গত ৪ জুলাই বিকেলে সে ঐ প্রতিষ্ঠানে কোভিড ১৯ পরীক্ষার জন্য রক্তদেয় পরের দিন ৫ জুলাই সে ফলাফল পায়।

রুমেল নামের একজন সচেতন ব্যাক্তিজানান কি করে এত অল্প সময়ে রেজাল্ট দেয় এবং এদের আদতেও পরীক্ষা করার অনুমোদন আছে কিনা যাচাই করা প্রয়োজন। যে ডাক্তার এবং বায়োকেমিষ্ট স্বাক্ষর করেছেন তাদের স্বাক্ষর সঠিক কিনা প্রশাসনের যাচাই করা প্রযোজন।

এ ব্যাপারে রক্ত সংগ্রহ এর কাজের সাথে জড়িত ব্যাক্তির সাথে যোগাযোগ করা হলে না প্রকাশ না করে বিষয়টি স্বীকার করে বলেন প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে সন্দ্যা ৭ টা পর্যন্ত আমরা রক্ত সংগ্রহ করে থাকি পরের দিন রেজাল্ট দেই।

আমরা এখানে কালেকশন বুথ করেছি ঢাকা থেকে পরীক্ষা করে রেজাল্ট দেয়া হয়। বাইরে ডিএনএ সলিউশন এর সাইনবোর্ড দেয়া আছে। এ ব্যাপারে পাবনা সিভিল সার্জন ডা. মনিসর চৌধুরী জানান, করোনার চিকিৎসা অনুমোদিত প্রতিষ্ঠান দিতে পারে।

চেষ্ট করা জন্য পাবনায় কোন প্রতিষ্ঠানকে অনুমোদন দেয়া নাই। রক্ত কালেকশান বুথের ও অনুমোদন দেয়া নাই। বিষয়টি আমার জানানাই তবে খতিয়ে দেখছি। পাবনা জেলা প্রশাসক বিশ^াস রাসেল হোসেন জানান, বিষয়টি জানা নাই অনুমোদন ছাড়া কেউ এরকম কিছু করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা। বিষয়টি ডেঞ্জারাস দ্রুত খতিয়ে দেখছি।

আরও পড়ুনঃ পাবনার ঈশ্বরদীতে নাপা ঔষধের চরম সঙ্কট

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন