পাবনায় সাজা মুক্তিপ্রাপ্ত দুই জনকে উপহার তুলে দেন- এমপি টুকু

পাবনা প্রতিনিধিঃ পাবনায় মাদক মামলায় সাজা ভোগকারী মুক্তিপ্রাপ্ত দুই জনকে কর্মব্যবস্থার উপহার প্রদান করা হয়েছে।

৪ মার্চ দুপুরে জেলার মাদক মামলায় সাজা ভোগকারী দুই জনকে প্রাথমিক কর্মব্যবস্থার এই উপহার তুলে দেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও পাবনা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. শামসুল হক টুকু এমপি।

মাদকের সাজায় মুক্তিপ্রাপ্ত একজনকে একটি সেলাই মেশিন ও একজনকে একটি ইঞ্জিন চালিত রিক্সা উপহার দেয়া হয়।

সরকারের সমাজসেবা অধিদপ্তরের অপরাধ সংশোধন ও পূর্নবাসন সমিতির সহযোগিতায় মাদকাসক্তদের মাদক মুক্ত রাখার জন্য এই কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

মাদকের অপরাধে কারামুক্ত দুই জন হলেন, ঈশ্বরদী উপজেলার ফতেমহম্মপুরের আবুল কাশেমের ছেলে মোঃ সাগর হোসেন (৩৭) ও পাবনা সদর উপজেলার দাপুনিয়া গ্রামের জাভেদ আলী প্রামানিকের ছেলে নূরুল আলম বাসিদ প্রামানিক (৪৮)।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, পাবনা জেল কারাগারের দায়িত্বপ্রাপ্ত জেল সুপার মোঃ শাহ আলম খান, জেলার আব্দুল্ল্যাহেল আল-আমিন, জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক রাশেদুল কবির, সমাজ সেবার প্রবেশন অফিসার পল্লব ইবনে শায়েখ প্রমুখ।

এ সময় অ্যাড. শাসুল হক টুকু এমপি স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশক্রমে সারা বাংলাদেশের প্রতিটি জেল কারাগারে মাদকের সাথে সম্পৃক্তদের ভালোর পথে ফিরিয়ে আনার জন্য এই কর্মসূচী গ্রহন করা হয়েছে।

এই মাদকাশক্তদের সমাজের বোঝা হিসাবে না রেখে তাদের কাজে লাগাতে হবে।

বর্তমানে প্রতিটি স্থানে বিশেষ করে চাকুরী ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির জন্য ডোপ টেস্ট করা হবে।

আগামী দিনে দলের দায়িত্বরত সকল নেতাকর্মীদের ডোপ টেস্ট করা হবে।

মাদকাসক্ত কেউ কখনো দেশ ও সমাজ সেবার কাজে লাগতে পারে না।

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা দেশকে মাদক মুক্ত করা, আমরা সেই লক্ষে কাজ করে যাচ্ছি।

করোনা ভাইরাসের জন্য আসামীদের সাথে স্বজনদের দেখা করতে দেয়া হয়নি।

চলতি মাসে সীমিত পরিসরে দেখা করার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

পরিবারের সদস্যদের সাথে সপ্তাহে একদিন মুঠোফোনে কথা বলতে পারছে।

বন্দিদের জন্য সকল সুযোগ সবিধা প্রদান করছে বর্তমান সরকার।

এসময় তিনি জেল কারাগার পরিদর্শন করেন।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন