মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ৭৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ঢাকার রাজপথে আনন্দ র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

দৈনিক স্বতঃকন্ঠ প্রতিবেদকঃ
বেসরকারি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি, বাংলাদেশ এর উদ্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ঢাকার রাজপথে আনন্দ র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বেসরকারি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি, বাংলাদেশ এর উদ্যোগে ১৪ অক্টোবর, ২০২০ইং রোজ বুধবার সকাল ১১ টায় ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাব চত্বরে শিক্ষক জমায়েত ও প্রেসক্লাব থেকে কদম ফোয়ারা হয়ে পল্টন মোড় ঘুরে আবারো প্রেসক্লাবের সামনে পর্যন্ত র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়।

র‌্যালীতে নেতৃত্ব দেন সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা ও প্রধান সমন্বয়কারী প্রাথমিক শিক্ষক নেতা মোঃ সামসুল আলম, সংগঠনের উপদেষ্টা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব ড. এ. এফ. এম. মঞ্জুরুল কাদির, উপদেষ্টা আতাউর রহমান, প্রাথমিক শিক্ষক নেতা আব্দুর রহমান বাচ্চু, এস. এম. আব্দুল গফুর, শেখ আব্দুস সালাম, মীর মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, প্রীতি তালুকদার, সংগঠনের সদস্য সচিব মোঃ শাহিদুল ইসলাম সাইদুর, আলামিন সরকার, মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, শাহাদৎ হোসেন সাগাই, মৌলভী ওয়াহিদুর রহমান, মাওলানা ইউসুফ, অনন্ত চাকমা, দেলোয়ার হোসেন, মোঃ হানিফ, দলিলুর রহমান, বুলবুল আহমেদ, জিয়াউল হক, বেলাল হোসেন, সুমন, মোশারফ, এরশাদুল হক, জ্যোতি ত্রিপুরা, একরামুল প্রমুখ।

সারাদেশ থেকে আগত প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষক লঞ্চ, ট্রেন ও বাস যোগে সকাল থেকে প্রেসক্লাবের সামনে জড় হতে থাকেন। র‌্যালী শেষে দুপুর ১২ টায় সেগুনবাগিচাস্থ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির নজরুল হামিদ মিলনায়তনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ৭৪তম জন্মবার্ষিকীর উপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় শিক্ষক নেতৃবৃন্দ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার বাংলাদেশ দৃঢ় নেতৃত্বে বাংলাদেশ দুরন্ত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। সারা বিশ্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। করোনা মহামারিতে যখন সারাবিশ্বের অর্থনীতি বেসামাল তখনো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়িয়েছে। দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় জননেত্রী শেখ হাসিনার বিকল্প নেই।”

শিক্ষক নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ২০১৩ সালের ৯ই জানুয়ারি এক শিক্ষক মহাসমাবেশের মাধ্যমে ২৬১৯৩টি বিদ্যালয় সরকারি করণের ঘোষণা দেওয়ার পর বর্তমানে দেশে চলমান বাদ পড়া বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। আমরা বিশ্বাস করি মানবিক দিক বিবেচনা করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অনতি বিলম্বের বাদপড়া সব বিদ্যালয়গুলো ও কর্মরত শিক্ষকদের সরকারি করণের ঘোষণা জাতীয় শিক্ষক সমাজের হৃদয়ে চির অম্লান চির অক্ষয় হয়ে থাকবেন।

এসময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু ও সাফল্য কামনা করে দোয়া করা হয়।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন