মোবাইল বাঁচাতে গিয়ে যমুনা নদীতে নিখোঁজ

টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে যমুনা নদীতে মোবাইল বাঁচাতে গিয়ে উপজেলায় নিকরাইল ইউনিয়ন পাথাইলকান্দী গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে মোতালেব সরকার(২৫) নিখোঁজ।

বুধবার (২৮ জুলাই) সকাল সাড়ে ৯ টার সময় উপজেলা নিকরাইল ইউনিয়নের পলশিয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। প্রত্যেক্ষদর্শীরা জানান, সকালে ১২ জন একত্রে হয়ে ছোট ডিঙি নৌকা যোগে নদীতে শখ করে মাছ ধরতে যাচ্ছিল।

সে সময় নৌকার ইঞ্জিল চালু করার পর পরই বঙ্গবন্ধু রেল সেতু কাজে ব্যবহৃত বড় বোটের সাথে ধাক্কা লাগলে নৌকা ডুবে যায়। এসময় ১১ জন বোটের টায়ার ধরে জীবন বাঁচান ।

আরেক (মোতালেব) জনের সাথে থাকা ফোনটি নদীতে পড়ে গেলে সে ফোন টি খুঁজতে গিয়ে নিখোঁজ হয়ে যায়। এ ঘটনায় জীবিত ফিরে আসা নিজামুদ্দিন বলেন- নৌকায় মেশিন চালু করেছি সবে-মাত্র।

তখনি হঠাৎ করে নদীতে পানি গোল চক্রের সৃষ্টি হলে মেশিনে অস্বাভাবিক শব্দ হয়ে বন্ধ হয়ে যায়। এরপর নৌকাটি দাঁড়িয়ে থাকা বোটের সাথে ধাক্কা লেগে ডুবে যায়।

আমরা ১১ জন দ্রুত জাহাজে (বোটে) ওঠলেও মোতালেব মোবাইল উদ্ধার করতে গিয়ে নিখোঁজ হয়ে যায় । আমরা অনেক খোঁজা খুঁজি করে মোতালেব কে না পেয়ে ৯৯৯ ফোন করি ।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের লিডার আবু বক্কর বলেন, সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোনের মাধ্যমে জেলার ভূঞাপুর উপজেলার পলশিয়া গ্রামের বঙ্গবন্ধু সেতু কাছাকাছি একটি ইঞ্জিল চালিত নৌকা ডুবির ঘটনা ঘটেছে।

খবর পেয়ে আমাদের ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে দ্রুত পৌঁছে উদ্ধার কার্যক্রম চালাই। দুপুর পর্যন্ত নিখোঁজ যুবকের সন্ধান পাওয়া যায়নি। তবে উদ্ধার কার্যক্রম অব্যহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুনঃ দেশ সেরা কনটেন্ট নির্মাতা প্রভাষক জনাব শেখ মোঃ সোহেল রানা!

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন