রাজশাহীর বাঘায় রাস্তার জমিকে কেন্দ্র করে মারামারি

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধিঃ রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী পৌর এলাকার ব্যাক্তি মালিকানা জমিতে চলাচলের রাস্তা কে কেন্দ্র করে প্রতিবেশীর সাথে মারা মারির ঘটনা ঘটেছে।

গত ১৫ অক্টোবর সন্ধ্যা ৬টার সময় এ ঘটনা ঘটে। তারই জের ধরে ২৫ অক্টোবর দুপুরে আবারও দ্বন্দ্ব হয় ছোট ছেলে আরাফাত (৪) কে গরম পানিতে পুড়ে যাওয়া নিয়ে।

ঘটনাটি ঘটেছে আড়ানী পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের দিয়াড় পাড়া (শাহ্ পাড়) গ্রামে। এ নিয়ে এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে।

সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, আড়ানী দিয়াড়পাড়া(শাহ্ পাড়া) গ্রামের আমানত শাহের ছেলে আরাফাত (৪) এর শরীরে তার মায়ের হাত হতে ডাউল রান্না করার সময় গরম পানি ছিটকে পরে পুড়ে যায়।

প্রতিবেশী মুন্জুরুল ইসলাম বলেন, ঘটনার দিন(২৫ অক্টোবর) সকাল ১১টার দিকে আমি পুঠিয়া ঝলমলিয়া বাজারের হোমিও ডাক্তার ডালুর কাছে আমার স্ত্রী ও প্রতিবেশী এক পুড়ে যাওয়া ছেলের জন্য ঔষধ আনতে যায়। পরে দুপুর ১২টার দিকে প্রতিবেশী আমানত শাহ ও তার ভাতিজা আমার মোবাইলে কল দিয়ে বলে আমার ছেলে আরাফাত তার মায়ের হাত থেকে ডাল রান্না করা গরম পানি পড়ে পুড়ে গেছে এবং ঔষধ নিয়ে আসে।

এ বিষয়ে আড়ানী পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সালাম বলেন, লিয়াকত আলী শাহ এর মালিকানা জমির উপর দিয়ে যাতায়াতের রাস্তার বিষয় নিয়ে দ্বন্দটি দীর্ঘদিন যাবৎ আমরা নিরসনের চেষ্টা করছি। তবে এ বিষয় নিয়ে জমির মালিক লিয়াকত আলীর ছেলেকেই মাথা ফাটিয়েছে। গত ২৫ তারিখে সন্ধ্যায় নওশাদ আলী আমাকে জানায় লিয়াকতের স্ত্রী আমানতের ছেলেকে গরম পানি দিয়ে পুড়িয়েছে। তবে ঘটনা মনে হচ্ছে অন্য কিছু হতে পারে।

বর্তমানে শিশুটি রামেক বার্ণ ইউনিট ৬ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন