রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ এর একান্তে ৯৫ তম জন্মদিন পালন

স্বতঃকণ্ঠ আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ৭৩ বছর বয়সী স্বামী প্রিন্স ফিলিপের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার কয়েক দিন পর, রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ বুধবার ৯৫ বছরে পা দিলেন।

রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ ২১ এপ্রিল ১৯২৬ সালে লন্ডনের মেফেয়ারে রাজা ষষ্ট জর্জ এবং রানী এলিজাবেথ এর প্রথম সন্তান হিসেবে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি যুক্তরাজ্য ও ১৫টি কমনওয়েলথ ভুক্ত রাষ্ট্রের রানী।

রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ ১৯৪৭ সালে প্রিন্স ফিলিপ, ডিউক অফ এডিনবার্গ এর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। শুক্রবার ৯ এপ্রিল প্রিন্স ফিলিপ, ডিউক অফ এডিনবার্গ মৃত্যুবরণ করেন এবং শনিবার ১৭ এপ্রিল তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়।

করোনা ভাইরাস এর কারনে চলমান বিধিনিষেধ ও প্রিন্স ফিলিপ এর মৃত্যু জনিত শোকাহত অবস্থায় এ বছর রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ এর জন্মদিন উদযাপনের কোন পরিকল্পনা ছিল না।

বাকিংহাম প্যালেস কর্তৃক প্রকাশিত এক বিবৃতিতে রানী বলেন: যদিও একটি পরিবার হিসেবে আমরা অত্যন্ত দুঃখের মধ্যে আছি, কিন্তু যুক্তরাজ্য, কমনওয়েলথ এবং সারা বিশ্বের মধ্যে যারা আমার স্বামীকে শ্রদ্ধা এবং সান্ত্বনা জানিয়েছেন তাদের নিকট আমরা সকলে কৃতজ্ঞ।

সাম্প্রতিক দিনগুলোতে আমাদের প্রতি যে সমর্থন ও দয়া দেখানো হয়েছে তার জন্য আমি এবং আমার পরিবার আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। আমরা গভীরভাবে স্পর্শ করেছি এবং মনে করিয যে, ফিলিপ সারা জীবন ধরে অসংখ্য মানুষের উপর এমন অসাধারণ প্রভাব ফেলেছিল।

বাকিংহাম প্যালেস জানিয়েছে, রাজকীয় শোকের সময় রানী উইন্ডসর ক্যাসলে তার জন্মদিনটি কাটাবেন। রানী সাধারণত তার জন্মদিন টি খুব বেশি প্রকাশ্য উদযাপন ছাড়াই ব্যক্তিগতভাবে কাটান।

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন রানীর জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে টুইট বার্তায় বলেন, আমি মহামান্য রানীকে তার ৯৫ তম জন্মদিনে আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাই। আমি সর্বদা যুক্তরাজ্য ও কমনওয়েলথের প্রতি তাঁর সেবার জন্য প্রশংসা করেছি। মহামান্য রানীর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে কাজ করতে পেরে আমি গর্বিত।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো রানীকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে টুইট বার্তায় বলেন, আজ, সমগ্রদেশ এবং সমগ্র বিশ্বের অন্যান্য অনেকের মতো, আমি রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথকে তার ৯৫ তম জন্মদিনের জন্য আন্তরিক শুভেচ্ছা পাঠাচ্ছি। আমি জানি এই জন্মদিনটি তাঁর জন্য কঠিন হবে, এবং আমার অনুভুতিগুলো অবশ্যই তার এবং পুরো রাজপরিবারের সাথে অব্যাহত রয়েছে।

করোনাভাইরাস জনিত বিধিনিষেধের অধীনে এটি তার টানা দ্বিতীয় জন্মদিন। গত বছরও রানী করোনা মহামারীর মধ্যে তার জন্মদিন উদযাপন করা অনুপযুক্ত হবে বলে মনে করেছিলেন।

কোভিড-১৯ নিয়ে ছড়িয়ে পড়া উদ্বেগের কারণে যুক্তরাজ্যে জনসমাবেশের উপর এখনও কঠোরতা রয়েছে। মাত্র ছয় জন বা তার কম লোকের গ্রুপকে বাইরে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয়, মাত্র ১৫ জনকে বিয়েতে অনুমতি দেওয়া হয় এবং ৩০ জন অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় অংশ নিতে পারে।

রানী প্রতি বছর দুটি জন্মদিন উদযাপন করেন, এপ্রিলে তার জন্মের প্রকৃত দিন, এবং জুনমাসে একটি আনুষ্ঠানিক জন্মদিন। দ্বিতীয় জন্মদিনটি ঐতিহ্যবাহী ট্রুপিং দ্য কালার প্যারেড আনুষ্ঠানিক ইউনিফর্ম পরা সৈন্যদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হয়, যা অষ্টাদশ শতাব্দীর একটি ঐতিহ্য।

সূত্রঃ এনবিসি নিউজ।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন