রাশিয়া ইউক্রেনের সীমান্তে দেড় লাখেরও বেশি সৈন্য কেন্দ্রীভূত করেছে

স্বতঃকণ্ঠ আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ইউরোপীয় ইউনিয়নের শীর্ষ কূটনীতিক জোসেপ বোরেল সোমবার ১৯ এপ্রিল বলেছেন যে, রাশিয়া ইউক্রেনের সীমান্তে এবং ক্রিমিয়ায় দেড় লাখেরও এরও বেশি সৈন্য কেন্দ্রীভূত করেছে।

ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডিমিট্রো কুলেবা মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল মস্কোর ওপর নতুন পশ্চিমা অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের আহ্বান জানিয়ে বলেন, “রাশিয়া উত্তর-পূর্বাঞ্চলে, পূর্বে এবং দক্ষিণে আমাদের সীমান্তের কাছাকাছি সৈন্য সমারোহ করছে। রাশিয়া প্রায় এক সপ্তাহের মধ্যে ১ লাখ ২০ হাজার এরও বেশি সৈন্য ইউক্রেনের সীমান্ত সম্মিলিত করবে বলে ধারনা করছে ইউক্রেন।

কুলেবা আরও বলেন, ইউক্রেন রাশিয়ার সাথে সংঘাত চায় না। কুলেবা মস্কোকে পূর্ব ইউক্রেনে যুদ্ধবিরতির জন্য পুনরায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান। যেখানে রাশিয়া ২০১৪ সালে শুরু হওয়া সংঘাতে বিচ্ছিন্নতাবাদী শক্তিকে সমর্থন করেছে।

কিয়েভ (ইউক্রেনের রাজধানী), ওয়াশিংটন এবং ন্যাটো ইউক্রেন সীমান্তে রাশিয়ান সৈন্যদের বিশাল সমারোহ দেখে শঙ্কা প্রকাশ করেছে। এর আগে ২০১৪ সালে মস্কো ইউক্রেন থেকে ক্রিমিয়ার একটি উপদ্বীপটি নিজেদের মধ্যে সংযুক্ত করেছিল।

পশ্চিমা কর্মকর্তারা বলছেন যে, রাশিয়ান সৈন্য বাহিনীর সমারোহ এখন ২০১৪ সালের সৈন্য সমারোহের চেয়ে অনেক বড়।

রাশিয়া বলেছে যে, এটি তিন সপ্তাহের বিল্ড-আপ স্ন্যাপ সামরিক মহড়া যা ন্যাটোর হুমকিমূলক আচরণের প্রতিক্রিয়ায় যুদ্ধের প্রস্তুতিমূলক পরীক্ষা। রাশিয়া জানিয়েছে যে, অনুশীলনটি দুই সপ্তাহের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা।

কুলেবা ইইউ পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাথে একটি ভিডিও সম্মেলনে যোগ দিয়ে “রাশিয়ার বিরুদ্ধে নতুন পর্যায়ের আঞ্চলিক নিষেধাজ্ঞা বিবেচনা করার জন্য সহকর্মীদের আহ্বান জানিয়েছেন”।

সূত্রঃ রয়টারস।

আরও পড়ুনঃ ইরান ৬০ শতাংশ হারে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ শুরু করেছে

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন