সিরাজগঞ্জে স্পার বাঁধ ধসে অর্ধশতাধিক বাড়িঘর যমুনায় বিলীন

আমিনুল ইসলাম, সিরাজগঞ্জঃ সিরাজগঞ্জ সদরে যমুনা নদীর পানির প্রবল স্রোতে সিমলা স্পার বাঁধের ৭০ মিটার এলাকাসহ অর্ধশতাধিক বাড়িঘর যমুনায় বিলীন হয়েছে।

সদ্য সংস্কার করা স্পার বাঁধ ধ্বসের কারণে পুরো এলাকা এখন হুমকিতে পরেছে। তবে ওই এলাকায় পাউবোর পক্ষ থেকে বালির বস্তা ফেলা হলেও কোন কর্মকর্তাকে দেখা যায়নি। গত ১০ দিন আগে বাঁধটির সংস্কার নির্মাণ কাজ শেষ হতে না হতেই এমন ভয়াবহ ধসের কারণে পাউবোর কেউ কথাও বলছেন না।

এলাকাবাসীর অভিযোগ সঠিক ভাবে মেরামত না করায় গত একমাসে বাঁধে দুইবার ভাঙ্গন দেখা দিলো। এ কারনে বাধ অভ্যন্তরের পাঁচঠাকুরী এলাকার প্রায় শতাধিক বসতবাড়ি নদীতে বিলীনের আশংকায় অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

জানাগেছে, বুধবার রাত ১০টার দিকে সদর উপজেলার ছোনগাছা ইউনিয়নের শিমলা এলাকায় অবস্থিত স্পার বাধের ৭০মিটার ধসে যায় বলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল আলম জানান। পাউবো কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করাতে ধসের মাত্রা বেড়ে যায়। ধসের মুখে পড়ায় ইতোমধ্যে পাঁচঠাকুরী এলাকার শতাধিক বসতবাড়ি নদীতে চলে যাওয়ার আশংকায় অন্যত্র সরিয়ে নিচ্ছে স্থানীরা। আশংকায় রয়েছে আরও বেশকিছু বসতবাড়ি। বাঁধ ধসের কারনে এসব এলাকার মানুষের মধ্যে আতংক দেখা দিয়েছে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরকার অসিম কুমার জানান, বাধ ধসের কারনে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোকে ত্রাণ সহায়তা দেয়া হবে।

সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী একেএম রফিকুল ইসলাম জানান, সম্প্রতি সংস্কার করা স্থানসহ বাধের মাটির অংশের প্রায় ৭০মিটার নদীতে ধসে গেছে। আমরা ধসে যাওয়া স্থানে জিওব্যাগ ফেলে সংস্কারের উদ্দ্যোগ নিয়েছি। তবে ঘটনাস্থলে থাকা উপসহকারী প্রকৌশলী জাকির হোসেন ক্যামেরা দেখেই বলেন কিছু বলতে পারবোনা সমস্যা আছে।

উল্লেখ্য, ২০০০-২০০১ অর্থ বছরে ভাঙ্গন এড়াতে যমুনার গতিপথ পরিবর্তনের লক্ষ্যে শিমলা এলাকায় স্পার বাঁধটি নির্মাণ করা হয়। এরপর বেশ কয়েকবার স্পারটি সংস্কারও করা হয়েছে। চলতি বছরের ৩০ মে যমুনা নদীতে পানি বৃদ্ধির কারণে স্পার বাঁধের স্যাংক (স্পারের মাটির অংশ) প্রায় ৩০মিটার ধসে গিয়েছিল। সেখানে বালিভর্তি জিওব্যাগ দিয়ে সংস্কার করা হয়। এ অবস্থায় বুধবার রাতে সংস্কার করা স্থানসহ আবারও ৭০ মিটার বাধ ধসে গেছে।

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন