৩৫ ভাগ কাজ সম্পন্ন হল রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতাঃ রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের কাজ গত ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ৩৫ ভাগ শেষ হয়েছে। এই পর্যন্ত ব্যয় হয়েছে ৩৯ হাজার ৭৪১ কোটি ২৪ লাখ ৬৫ হাজার টাকা ।

গত বুধবার ১০ মার্চ রূপপুর বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের সর্বশেষ অগ্রগতি জানানো হয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় ষ্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠকে। সংসদ সচিবালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এই তথ্য জানা গেছে।

এদিকে রূপপুর বিদ্যুৎ কেন্দ্রের দ্বিতীয় ইউনিটের জন্যে রাশিয়ায় নির্মিত শেষ সরঞ্জাম পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে বলে জানা যায় রোসাটমের এক বিজ্ঞপ্তিত থেকে।

সংসদ সচিবালয়ের বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায় যে, “রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের মেয়াদকাল জুলাই ২০১৬ থেকে ডিসেম্বর ২০২৫ পর্যন্ত। প্রকল্পের ব্যয়ের পরিমাণ ১ লাখ ১৩ হাজার ৯২ কোটি ৯১ লাখ ২৭ হাজার টাকা”।

এরমধ্যে সরকারি অর্থ ২২ হাজার ৫২ কোটি ৯১ লাখ ২৭ হাজার টাকা এবং রাশিয়ান প্রকল্প সাহায্য ৯১ হাজার ৪০ কোটি টাকা। সংসদীয় ষ্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠকে এই পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নির্মাণকাজে নিরাপত্তাজনিত সব পদক্ষেপ গ্রহণ এবং নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করার জন্য সুপারিশ করা হয়।

আ. ফ. ম. রুহুল হক এমপি বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। বিশেষ আমন্ত্রণে উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান ।

কমিটির সদস্য হুইপ ইকবালুর রহিম, শফিকুল আজম খাঁন, মোজাফ্ফর হোসেন, মো. আক্তারুজ্জামান, শিরীন আহমেদ, সেলিমা আহমাদ ও হাবিবা রহমান খান বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

রাশিয়ার জিও পোডলস্ক জেএসসিভ শেষ সরঞ্জাম পাঠিয়েছে। রোসাটমের গণমাধ্যম শাখা জানায়, রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের দ্বিতীয় ইউনিটের জন্যে সরঞ্জাম প্রস্তুত করে পাঠিয়েছে জিও পোডলস্ক জেএসসি রোসাটমের গণমাধ্যম শাখার মাধ্যমে জানাযায় (রোসাটমের যন্ত্র প্রস্তুতকারী শাখা-জেএসসি এটোমএনার্গোম্যাস)।

পন্যের শেষ সেটটি পাঠানো হয়েছে, বৃহৎ আকারের এতে রয়েছে চতুর্থ এমএসআর এসপিপি -১২০০ এবং দ্বিতীয় উচ্চ চাপযুক্ত হিটার এইচপিএইচ-কে-৫।

টার্বাইন হাই-প্রেসার সিলিন্ডারের পরে ভেজা বাষ্পকে শুষ্ক করতে পারে এমন ভাবে তৈরী করা হয়েছে এই আর্দ্রতা পৃথকীকরন রিহিটারকে । এসপিপি -১২০০ কে তিন অংশে পাঠানো হয়েছে, ৪১ টন ওজনের একটি সেপারেটর, একটি প্রথম স্টেজের রিহিটার (ইউনিট ওজন ৮৬ টন) এবং একটি দ্বিতীয় স্টেজের রিহিটার (ইউনিট ওজন ১০৫ টন)।

এইচপিএইচ- কে- ৫ উচ্চ চাপযুক্ত হিটারটি পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের টার্বাইন হলের যন্ত্রাংশ। এটি ১১ মিটার দৈর্ঘ্য ও ১২০ টন ওজন বিশিষ্ট একটি বৃহৎ আকারের যন্ত্র। স্টীম জেনারেটরের সরবরাহকৃত পানিকে উত্তপ্ত করে এইচপিএইচ-কে-৫ যন্ত্রটি এবং টার্বাইনের প্রাথমিক স্টীমকে কে ঠান্ডা করে ও ঘনীভুত করে।

এসব সরঞ্জামের সর্বমোট ওজন ৩৫০ টন। ৫০ বছর এগুলোর কর্মক্ষমতা। এই সরঞ্জামগুলোর ডিজাইন ডকুমেন্টেশন এবং সরঞ্জামগুলো প্রস্তুত করার ডিজাইন সরবরাহ করে জিও পোডলস্ক জেএসসি এর পরমাণু প্রকৌশল বিভাগ।

রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের রিয়াক্টর কম্পার্টমেন্ট, টার্বাইন হলের একটি বড় অংশ এবং ভিভিইআর -১২০০ রিয়াক্টর সরবরাহ করবে জে এস সি এটোমএনার্গোম্যাস। কোম্পানীটি রিয়াক্টর, স্টিম জেনারেটর, পাম্প এবং হিট এক্সচেঞ্জিং যন্ত্রপাতি প্রস্তুত করে।

রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র রাশিয়ান নকশা ও ডিজাইন অনুযায়ী বাস্তবায়ন হচ্ছে। এই কেন্দ্রে ২টি বিদ্যুৎ ইউনিটে ভিভিইআর থ্রি প্লাস রিয়াক্টর থাকবে এবং প্রত্যেকটি ১২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ প্রস্তুত করবে।

আরও পড়ুনঃশাহজাদপুরে স্বাধীনতা দিবস পালন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত

একই ধরনের খবর

মন্তব্য করুন